শিরোনাম

লকডাউনঃ আড্ডার উপলক্ষ্য নয়, হোক রক্ষাকবচ

মাজহারুল হাসান

শুক্রবার, এপ্রিল ১০, ২০২০ ১০:৩৮ অপরাহ্ণ

করোনা ভাইরাস বিষয়ে আর নতুন করে কিছু বলার নেই। গত একশ বছরে সমগ্র পৃথিবীতে অন্যতম বড় মানবিক বিপর্যয় নিয়ে এসেছে ভাইরাসটি। সারা দুনিয়ার বাঘা বাঘা ব্যক্তিবর্গকে হেনস্তা করে ছেড়েছে এবং এখনো এর ধ্বংসলীলা চালিয়ে যাচ্ছে জীব ও জড়ের মাঝামাঝি অবস্থানে থাকা অতি-আণবীক্ষনিক এই বস্তুটি। ভাইরাসের তান্ডব পৃথিবীতে নতুন কোন ব্যাপার নয়। পৃথিবীতে এর আগেও অনেক মারাত্মক ভাইরাস তার ক্ষুদ্র থাবা বিস্তার করে মানব দেহের বড় ক্ষতি করলেও তা মানবজাতিকে এত গভীরভাবে ক্ষতিগ্রস্থ করতে পারেনি। অপরদিকে করোনা ভাইরাসটি মানবদেহের জন্য এত বেশি ক্ষতিকর না হলেও ( আক্রান্তের তুলনায় মৃতের সংখ্যা খুব কম। সুস্থ-সবল, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভাল এমন মানুষ দ্রুত সুস্থ হয়ে যাচ্ছে কিন্তু যাদের ডায়াবেটিস, কিডনী, ফুসফুসের রোগ ইত্যাদি অন্যান্য জটিলতা আছে এমন আক্রান্তের মৃত্যু হচ্ছে বেশি) এর সংক্রমণের গতি সমগ্র পৃথিবীকে আজ মৃত্যুপুরীতে পরিণত করেছে। আমরা আরও জেনেছি যে এ ভাইরাসটি দ্রুত জীন পরিবর্তন করছে বিধায় এর যথাযথ প্রতিষেধক আবিষ্কার করা যাচ্ছে না। অতএব, এ থেকে নিজেকে বাঁচানোর একমাত্র উপায় হলো ঘরে অবস্থান করা এবং অন্য কারো সংস্পর্শ থেকে নিজেকে সরিয়ে রাখা। এসকল বিষয় আমরা অনেকদিন যাবৎ অনেকভাবেই জেনে আসছি। কিন্তু, মানতে পারছি কি? আমাদের দেশে কয়েকদিন আগেও করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছিল হাতেগোনা অল্প কয়েকজন। সরকার সতর্কতাস্বরূপ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং অন্যান্য অফিস ছুটি ঘোষণা করে। সকলকে ঘরে অবস্থান করতে বলে। তারপরও আমরা না শুনে আগের মত বাইরে ঘোরাঘুরি অব্যাহত রাখলাম। সরকার বাধ্য হয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে মাঠে নামালো। আমাদের বোকামির দণ্ড হিসেবে দেখতে পাচ্ছি প্রতিদিন আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে বাড়ছে। আক্রান্তের সংখ্যা যখন বাড়ন্ত তখন আমাদের তথাকথিত টনক ধীরে ধীরে নড়াচড়া শুরু করেছে। আমরা নিজ উদ্যোগে নিজেদের এলাকা লকডাউনের উদ্দেশ্যে সড়কে বাঁশ, গাছের গুড়িসহ যার যা কিছু আছে তাই দিয়ে ব্যারিকেড তৈরি করছি। উদ্দেশ্য, বহিরাগত কেউ যেন এলাকায় প্রবেশ করতে না পারে। উদ্দেশ্য অত্যন্ত মহৎ এতে কোন সন্দেহ না থাকলেও তা সুদূরপ্রসারী কিনা এতে কিন্ত যথেষ্ট সন্দেহ থেকেই যাচ্ছে। যেটা হচ্ছে তা হলো এলাকার রাস্তা আটকে রেখে তাকে কেন্দ্র করে এলাকার ছেলে বুড়োদের আড্ডা চলছে। লকডাউনের উদ্দেশ্য হচ্ছে কেউ যেন ঘরের বাইরে না আসে। অতি জরুরী প্রয়োজন পড়লে শুধু একজন পর্যাপ্ত সুরক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে বাইরে যাবে। তা না করে আমরা এলাকা বন্ধ করে আড্ডা দিচ্ছি। এভাবে রাস্তা বন্ধ করার ফলে হঠাৎ অসুস্থ রোগী পরিবহণকারী গাড়ি বা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর গাড়ি আটকে যেতে পারে। এখন চৈত্র মাস। এসময় আগুন লাগার সম্ভাবনা বেশি থাকে। কোথাও আগুন লাগলে এহেন সড়কে প্রতিবন্ধকতা কত বড় বিপর্যয় ডেকে আনতে পারে তা সহজেই অনুমেয়। আর এই যে রাস্তা আটকে আমরা আড্ডা জমাচ্ছি, তাতে সংক্রমণের ঝুঁকি কিন্তু আরও বেড়ে যাচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে সকলের কাছে আহবান জানাই, জাতি হিসেবে আমরা অনেক আবেগী এবং আড্ডাবাজ তা অজানা নয়। ‘চায়ের কাপে ঝড়’ এই টার্মটি বাঙালির সাথে যতটা যায় ততটা হয়তো অন্য কোন জাতির সঙ্গে যায়না। এতে আমাদের একে অন্যের সাথে সম্পর্ক কতটা হৃদ্যতাপূর্ণ তা প্রকাশ পায়। কিন্তু, সময় এখন সম্পূর্ণ ভিন্ন। আসুন আমরা লকডাউনে ঘরেই থাকি। ঘরে মানে ঘরে। লকডাউন মানে এলাকার রাস্তাঘাট বন্ধ করে এলাকায় আড্ডা না জমিয়ে নিজেকে ঘরে বন্দী করে রাস্তাটাকে জরুরী পরিষেবায় নিয়োজিতদের জন্য উন্মুক্ত রাখি। লকডাউন ঢাল হয়ে আমাদের রক্ষা করুক।

লেখক- প্রভাষক, ইংরেজি বিভাগ, তেজগাঁও কলেজ, ঢাকা।

image_printPrint

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

মুজিব বর্ষ

মুজিববর্ষ

সংবাদ আর্কাইভ

নামাজের সময় সূচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৫০
  • ১১:৫৯
  • ৪:৩৪
  • ৬:৪২
  • ৮:০৬
  • ৫:১২

ক্যালেন্ডার

May 2020
M T W T F S S
« Apr    
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031